৪০ মন্ত্রণালয়ে ১৩৬৪ কোটি টাকা বকেয়া বিদ্যুৎ বিল

MuzahidAlam 2017-10-11 রাজধানী

দেশের বিদ্যুৎ খাত বকেয়া বিলের জাল থেকে মুক্ত হতে পারছে না । বরং দিনে দিনে এ জাল আরো শক্তভাবে বেঁধে ফেলছে সেবা খাতটিকে। বিল খেলাপের বিশাল বোঝা নিয়ে চলছে বিদ্যুৎ বিতরণকারী সরকারি সংস্থা কোম্পানিগুলো। সরকারি বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও প্রতিষ্ঠানই সবচেয়ে বেশি বিল বাকি রেখেছে। ৪০টি মন্ত্রণালয় এবং বিভাগের কাছে বকেয়া বিল বাবদ বিতরণ সংস্থা কোম্পানিগুলো পাবে অন্তত ১ হাজার ৩৬৪ কোটি টাকা।

বিদ্যুৎ বিতরণকারীরা বারবার তাগাদা দিয়েও বিল আদায় করতে পারছে না অনেক সরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে। ফলে বকেয়া অর্থের পরিমাণও বেড়ে চলছে। অনেক প্রতিষ্ঠানকে বহুবার তাগাদা-চিঠি দেওয়ার পর কিছু অর্থ পাওয়া গেলেও বাকি অর্থ কবে নাগাদ পরিশোধ করা হবে তা অনিশ্চিত।

বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের গত জুন পর্যন্ত বিভিন্ন সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের কাছে ৬ টি বিতরণ সংস্থা-কোম্পানির বকেয়া বিলের পরিমাণ ১৩৬৪ কোটি ৭ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। গত বছর এ বকেয়ার পরিমাণ ছিল প্রায় ১২শ কোটি টাকা। গত সেপ্টেম্বরে বকেয়ার পরিমাণ ১ হাজার ৩৭২ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস বলেন, বেসরকারি পর্যায়ে বিদ্যুৎ বিলের বকেয়া এখন তেমন নেই। কিন্তু সরকারি পর্যায়ে অনেক বকেয়া রয়েছে। সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো যে বরাদ্দ পায় তাতে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধেরও অর্থ রয়েছে। কিন্তু তারা পরিশোধ করছে না। তিনি  আরো বলেন, বকেয়া বিল আদায়ে এখন বিদ্যুৎ বিভাগ সরকারের কাছে নতুন প্রস্তাব দেবে। সরকারি, আধা সরকারি এবং স্বশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিদ্যুৎসেবা বাবদ যে বরাদ্দ সরকার দেবে তা অন্যখাতে যেন তারা ব্যবহার করতে না পারে সে প্রস্তাব দেয়া হচ্ছে। এ প্রস্তাব বাস্তবায়িত হলে বকেয়া আদায়ে গতি আসবে।

বর্তমানে দেশে ৬ টি সংস্থা-কোম্পানি বিদ্যুৎ বিতরণ করছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি দায় বহন করছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি)। ৪৯১ কোটি টাকারও বেশি বিল খেলাপ করেছে কোম্পানিটির সরকারি গ্রাহকরা। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) বকেয়া অর্থের পরিমাণ ৩৬৯ কোটি ৯ লাখ টাকা। সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে ঢাকা ইলেক্ট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানির (ডেসকো) বকেয়া ১২১ কোটি ১৩ লাখ টাকা, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (আরইবি) ৪৯ কোটি ১২ লাখ টাকা, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) ১১৭ কোটি ১৩ লাখ টাকা এবং নবগঠিত নর্থ ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (নওজোপাডিকো) ২১৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। গত বছর নওজোপাডিকো যাত্রা শুরু করলেও পিডিবির আওতাধীন এলাকা নিয়ে যাত্রা শুরু করা কোম্পানিটি ওই এলাকায় পিডিবির বিলখেলাপের অর্থ আদায়ের দায়িত্বও গ্রহণ করেছে।